শনিবার, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২১

Close

Home জাতীয় পোশাক কারখানায় নেতৃত্বে আসছেন নারীরা

পোশাক কারখানায় নেতৃত্বে আসছেন নারীরা

বাংলাদেশে পোশাক শ্রমিকদের অর্ধেকের বেশি নারী। তবে সুপারভাইজার পদে ৯০ শতাংশের বেশি পুরুষ দায়িত্বে রয়েছেন৷ এ ক্ষেত্রে পরিবর্তন আনার চেষ্টা করছে দেশি, বিদেশি বেসরকারি সংস্থা ও মালিকরা। কারখানায় মেয়েদের নেতৃত্বে আনতে চাচ্ছে তারা। এজন্য তাদের প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে৷

২০১৩ সালে ডিবিএল গ্রুপের পোশাক কারখানায় কোনো পর্যায়ে নেতৃত্বে ছিলেন না নারীরা৷ সেখানে এখন প্রতি পাঁচ সেলাই লাইনের একটির দায়িত্বে আছেন তারা। ২০১৭ সালে নারী নেতৃত্বে পরিচালিত ৪২ দলের ওপর গবেষণা চালায় প্রতিষ্ঠানটি৷ এতে দেখা যায়, ছেলেদের নেতৃত্বে থাকা দলগুলোর চেয়ে তাদের কর্মদক্ষতা তিন শতাংশ বেশি৷ সেই লাভের পরিমাণ প্রায় ১২ কোটি ৮০ লাখ টাকা৷

এখন পর্যন্ত ১০০ এর বেশি নারীকে সুপারভাইজার পদের জন্য প্রশিক্ষণ দিয়েছে ডিবিএল৷ এর মধ্যে দুই-তৃতীয়াংশ সেখানে কাজ করছেন৷ বাকিরা ভালো বেতনের প্রস্তাব পেয়ে অন্য প্রতিষ্ঠানে চলে গেছেন। দর্জি হিসেবে পোশাক কারখানায় কাজ শুরু করেন নুরুন্নাহার বেগম। চার বছরের মাথায় প্রশিক্ষণ নেন তিনি। পরে সুপারভাইজার হিসেবে দায়িত্ব নেন৷

নুরুন্নাহার বলেন, ‘কাজের শুরুতে দেখি কয়েক দিন পর পর পুরুষ সুপারভাইজার পরিবর্তন হচ্ছে৷ কারণ, তারা ভালো কাজ পারতেন না। তাই সুপারভাইজার হওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করি। এ জন্য আমাকে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়৷ পরে সুপারভাইজার পদে কাজ শুরু করি৷’

তিনি জানান, সেলাই লাইনে কাজ করা কর্মীদের বেশিরভাগই নারী৷ তাই মনে করেন, তাদের নেতৃত্বে ছেলের চেয়ে নারী থাকা ভালো। কারণ, মাসিক হলে নারীদের ব্যথা হয়। অনেক সময় এ কথা ছেলে বসকে বলতে পারেন না তারা। ফলে কাজ না করে বসে থাকেন৷ এতে উৎপাদন ব্যহত হয়৷

নুরুন্নাহার বলেন, ‘ওই অবস্থায় আমি যদি সেই নারীকে তাড়াতাড়ি বাড়ি পাঠিয়ে দেই কিংবা একটু বিরতি নেয়ার সুযোগ দেই৷ তাহলে উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হয়। কারণ, তারা পরে পূর্ণোদ্যমে কাজ শুরু করতে পারেন।’

দাতাদের অর্থায়নে ‘জেন্ডার ইকুয়ালিটি অ্যান্ড রিটার্নস’ (জিইএআর) কর্মসূচির আওতায় ৬০ কারখানায় প্রশিক্ষণ চলছে৷ জিইএআর জানাচ্ছে, প্রশিক্ষণ পাওয়া নারী সুপারভাইজারদের নেতৃত্বে থাকা সেলাই লাইনের উৎপাদন ক্ষমতা পাঁচ শতাংশ বেড়েছে৷ ছয় মাস মেয়াদি এ প্রশিক্ষণে নারীদের আত্মবিশ্বাস বাড়ানো, চাপ মোকাবিলা ও সহকর্মীদের সঙ্গে কার্যকর যোগাযোগ করার উপায় শেখানো হয়৷ এছাড়া উৎপাদন প্রক্রিয়া বাধাগ্রস্ত হলে সমাধানে করণীয়, কর্মদক্ষতা পরিমাপের বিষয়েও প্রশিক্ষণ দেয়া হয়৷

আপনার মন্তব্য দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন!
এখানে আপনার নাম লিখুন

- Advertisment -
  • সর্বশেষ
  • আলোচিত

সাম্প্রতিক মন্তব্য

স্বঘোষিত মহাপুরুষ on লকডাউন বাড়লো আরও একসপ্তাহ
জান্নাতুল ফেরদৌস on চিরবিদায় কিংবদন্তি কবরীর