বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ৬, ২০২২

Close

Home বিশেষ খবর ভ্যালেন্টাইনে সিঙ্গেলরা যা করতে পারেন!

ভ্যালেন্টাইনে সিঙ্গেলরা যা করতে পারেন!

আজ ১৪ ফেব্রুয়ারি, ‘ভ্যালেন্টাইন ডে’ বা ভালোবাসা দিবস! এখনো যারা ‘দ্য রাইট ওয়ান’-এর জন্য অপেক্ষা করছেন, এমন সিঙ্গেলদের ভ্যালেন্টাইন ডে কেমন হতে পারে! চলুন জেনে নিই এমন কিছু উদ্‌যাপন, যা যেকোনো ধরনের সিঙ্গেলের ভ্যালেন্টাইন ডে-কে বিশেষ দিনে পরিণত করতে পারে।

সিঙ্গেল বন্ধুদের সঙ্গে ভ্রমণে যাওয়া

প্রকৃতিপ্রেমীদের জন্য ভ্যালেন্টাইন সপ্তাহটি ঘোরাঘুরির জন্য শুধু একটি ভণিতা হতে পারে। সঙ্গী হিসেবে বন্ধুবান্ধব, পরিবার বা আত্মীয়স্বজন যে কেউ হতে পারে। অবশ্য এ ক্ষেত্রে সিঙ্গেলদেরই খুঁজে বের করতে হতে পারে। তবে সবকিছু উপেক্ষা করে ভ্যালেন্টাইন ডের ভোরবেলা একা একাই বেরিয়ে যাওয়া যায় ট্রাভেল ব্যাগ কাঁধে করে। দূরপাল্লার বাসে উঠে ফোনে প্রিয় গানগুলো নিয়ে তৈরি প্লেলিস্টটা ছেড়ে দিয়ে কানে এয়ারফোন লাগিয়ে দৃষ্টি রাখা যায় জানালার ওপাশে ছুটতে থাকা শহরে। দূরের কোনো অজপাড়া গাঁ, বিলের বুকে নৌকায় ভেসে থাকা অথবা পাহাড় চূড়া থেকে পাখির চোখে নিচের লোকালয় দেখা নিমেষেই ভুলিয়ে দিতে পারে দিনক্ষণ।

বন্ধুদের সঙ্গে জম্পেশ আড্ডা

সিঙ্গেলদের ভ্যালেন্টাইন ডে মানেই প্রিয় কোনো জায়গায় বসে বন্ধুদের সঙ্গে জমিয়ে আড্ডা। হতে পারে সেটা পাড়ার টং দোকান অথবা বাসার ছাদে বা টিএসসির মোড়ে কিংবা চিত্রশালার খোলা উদ্যানে। ঝালমুড়ি, চা খাওয়ার ছুতোয় বেহিসাবি ঘণ্টাগুলো ভুলিয়ে দিতে পারে চারপাশের সবকিছু। যারা ইতোমধ্যে পড়াশোনার জীবন পার করে কর্মজীবনে প্রবেশ করে ফেলেছেন, তারা প্রায়ই দুঃখ করেন ফেলে আসা বন্ধু-আড্ডার দিনগুলোর জন্য। কেননা, বন্ধুরা সব কাছাকাছি থাকলেও ব্যস্ততার জন্য সবাইকে একই সময় পাওয়া যায় না। আর যারা দূরে চলে গেছে, তাদের অবস্থা তো আরও করুণ। তাই সিঙ্গেল বন্ধুদের একত্রিত হওয়ার জন্য ভ্যালেন্টাইন ডে হতে পারে সেরা উপলক্ষ।

নতুন বা প্রিয় কোনো মুভি বা টিভি সিরিজ দেখা

পরিবার বা আত্মীয়স্বজন অথবা বন্ধুবান্ধবের সঙ্গে মুভি দেখার সময়টি হতে পারে শ্রেষ্ঠ একটি কোয়ালিটি টাইম। আর ব্যস্ততার জন্য কাউকেই পাওয়া না গেলে নতুন বা প্রিয় কোনো মুভি ছেড়ে দিয়ে একা একাই বসে যাওয়া যেতে পারে কফিভর্তি মগ হাতে নিয়ে। কয়েক যুগ ধরে চলচ্চিত্রগুলোর পাশাপাশি টিভি সিরিজগুলো বিভিন্ন ধরনের দর্শকের চাহিদার ভিত্তিতে কন্টেন্ট তৈরি করে আসছে। সব মুভি বা টিভি সিরিজের পটভূমিতেই রোমান্টিক আবহ থাকে না। এই মাধ্যমটি বিশেষত অফিসপাড়ার সিঙ্গেলদের জন্য ভ্যালেন্টাইন ডে উদ্‌যাপনের সেরা উপায় হতে পারে।

পরিবারের সঙ্গে সময় কাটানো

ভ্যালেন্টাইন ডে’ কেন্দ্র করে বাবা-মা, ভাইবোনদের জন্য গিফট কিনে সেগুলো দেওয়ার জন্য ছোট্ট করে মজার একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা যেতে পারে বাসার মধ্যেই। এখানে পরিবারের সদস্যদের প্রত্যেকে নিজ নিজ প্রিয় গান গাইতে পারে বা কবিতা আবৃত্তি করতে পারে অথবা শেয়ার করতে পারে নিজের জীবনের প্রিয় কোনো মুহূর্ত। বড় পরিবারের ক্ষেত্রে এই আনন্দগুলো আরও বড় হতে পারে। চাচাতো ভাইবোনরা সব একসঙ্গে হয়ে বিভিন্ন ধরনের খেলা করা, বাড়ি সাজানো, রান্নাবান্না সব মিলিয়ে ক্রিস্টমাস বা ঈদের মতোই এক দারুণ সময়ের অবতারণা করা যেতে পারে।

নতুন ব্লগ তৈরি

যারা নিজের কাজটি করতে প্রচণ্ড ভালোবাসেন, তাদের আসল ভ্যালেন্টাইন তো সেই কাজটিই। তাই যে কাজে পারদর্শিতা আছে, সে রকম কোনো কাজ করে তা রেকর্ড করার জন্য ভ্যালেন্টাইন ডে-টা সেরা। হতে পারে সেটা গিটার বাজানো, গান গাওয়া, রান্না, প্রযুক্তিবিষয়ক কোনো ভিডিও, এমনকি ঘুরতে গিয়েও ভ্রমণটা ভিডিও করে আনা যেতে পারে। এরপর ফুটেজগুলো মনের মতো সম্পাদনা করে আপলোড করা যেতে পারে ইউটিউব ও ফেসবুকে। এটি শুধু তৃপ্তির কাজ-ই করা হবে না; পাশাপাশি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ক্যারিয়ার গড়ার জন্যও একটি সুদূরপ্রসারী ভূমিকা রাখবে।

লম্বা ঘুম দেয়া

ভালোবাসার দিনে ভালোবাসার মানুষজন পাশে না থাকলে মন খারাপ হতেই পারে। তাই এ সময়ে ঘুম হতে পারে চমৎকার সময় কাটানো। পাশাপাশি কর্মব্যস্ততা, পরীক্ষা, অ্যাসাইনমেন্টসহ সকল কিছুকে একপাশে রেখে একটি ঘুম হতে পারে শরীরের অবসাদ কাটানোর উপায়ও।

 

ডেল্টামেইল/জেএ

 

আপনার মন্তব্য দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন!
এখানে আপনার নাম লিখুন

- Advertisment -
  • সর্বশেষ
  • আলোচিত

সাম্প্রতিক মন্তব্য

স্বঘোষিত মহাপুরুষ on লকডাউন বাড়লো আরও একসপ্তাহ
জান্নাতুল ফেরদৌস on চিরবিদায় কিংবদন্তি কবরীর