Home ব্যবসা- বাণিজ্য অর্থনীতি মুখ থুবড়ে পড়েছে সোনালী আঁশের রপ্তানি

মুখ থুবড়ে পড়েছে সোনালী আঁশের রপ্তানি

মুখ থুবড়ে পড়েছে সোনালী আঁশের রপ্তানি
ছবি: সংগৃহীত

গত বছর চমক দেখানোর পর চলতি অর্থবছরে মুখ থুবড়ে পড়েছে সোনালী আঁশ পাটের রপ্তানি। প্রথম চারমাসে এই খাতে আয় কমেছে ২৪ শতাংশের বেশি।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, ফড়িয়াদের দৌরাত্ম্যে কাঁচা পাটের বাজার অস্থিতিশীল। পাশাপাশি অতিরিক্ত জাহাজ ভাড়ার কারণেও আগ্রহ হারাচ্ছেন বিদেশি ক্রেতারা। রপ্তানি বাড়াতে ভারতের অ্যান্টি ডাম্পিং শুল্ক প্রত্যাহারে আন্তর্জাতিক বাণিজ্য সংস্থার কাছে যাওয়ার তাগিদ বিশ্লেষকদের।

গত অর্থবছরে দেশের রপ্তানি আয় কমে গেলেও পাটে ফিরেছিলো সোনালী দিন। আগের বছরের তুলনায় প্রায় ৩২ শতাংশ বেড়ে পাট ও পাটপণ্য থেকে আসে ১১৬ কোটি ডলারের বেশি। কিন্তু চলতি বছরের প্রথম চারমাসেই দ্বিতীয় রপ্তানি খাত থেকে পাঁচে নেমে গেছে পাট।

গত মৌসুমে প্রাকৃতিক দুর্যোগে পাটের উৎপাদন কম হওয়ার পাশাপাশি ফড়িয়াদের তৎপরতায় কাঁচাপাটের দাম বেড়ে প্রতি মণ ২ হাজার দুশো থেকে ৬ হাজার টাকা পর্যন্ত ছাড়িয়ে যায়। মজুতের নীতিমালা কঠোরভাবে বাস্তবায়নসহ সরকারি তদারকি না বাড়ালে দীর্ঘ মেয়াদে পাটের আন্তর্জাতিক বাজার ধরে রাখা যাবে না বলছেন ব্যবসায়ী নেতারা।

কয়েক বছর আগেও বাংলাদেশের পাট ও পাটপণ্যের রপ্তানি আয়ের প্রায় ২০ শতাংশ আসতো ভারতের বাজার থেকে। দেশটির অ্যান্টি ডাম্পিং শুল্ক আরোপের পর যা অনেকটাই কমে গেছে। আন্তর্জাতিক বাণিজ্য সংস্থার মাধ্যমে ভারতের বাজার ফেরানোর উদ্যোগ নেয়ার পরামর্শ বিশ্লেষকদের।

প্যাকেজিং আইন বাস্তবায়নে কঠোর নজরদারির মাধ্যমে স্থানীয় বাজারে পাটপণ্যের চাহিদা বাড়ানোরও দাবি ব্যবসায়ীদের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here