শনিবার, অক্টোবর ১৬, ২০২১

Close

Home জাতীয় রাজধানীর ৭০ শতাংশ ভবনে নেই ​অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা

রাজধানীর ৭০ শতাংশ ভবনে নেই ​অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা

রাজধানীতে যত ভবন তার ৭০ শতাংশে নেই অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা। আর যত অগ্নিকাণ্ড হয় বাসা-বাড়ি কিংবা শিল্পকারখানায়, তার ৩০ শতাংশই হয় মানহীন ক্যাবল ব্যবহারের কারণে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বিদ্যমান অনেক ভবনে নতুন করে হয়তো অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা গড়ে তোলা অসম্ভব। তবে মানসম্পন্ন ক্যাবল ব্যবহার করলে এই ঝুঁকি কমবে বহুগুণ।

আগুনের লেলিহান শিখা রাজধানীর অভিজাত এলাকার সুউচ্চ এই দালানকেই শুধু ভস্মিভূত করেনি, নিভিয়েছে অনেকের জীবন প্রদীপও।

ভাবা যায়, বাইরের চাকচিক্যময় এমন একটি ভবন ঘণ্টার পর ঘণ্টা পুড়ছে, অথচ কাজে লাগছে না ভবনটিতে থাকা অগ্নিনির্বাপণের কোনও ব্যবস্থা।

শুধু কি এফআর টাওয়ার? সমাজের নিম্নবিত্ত থেকে উচ্চবিত্তের চোখের সামনে ছাই হয়ে যাওয়া সবার অবলম্বনের কারণ অনুসন্ধানে বেশিরভাগ সময়ে ঘুরে ফিরে আসে শর্টসার্কিটের বিষয়টি। এই বিশেষজ্ঞের মতে, কিছু টাকা বাঁচাতে গিয়ে বিপদ ডেকে আনছি আমরা।

বুয়েটের তড়িৎ ও ইলেকট্রিনিক কৌশল বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ইয়াসির আরাফাত বলেন, ‘নির্দিষ্ট কিছু জায়গায় আমরা দামি এবং নিরাপদ কেবল ব্যবহার করলাম, যেটা আগুনে কিছু হয় না। আর অন্য জায়গায় আমরা লোয়েস্ট বা জিরো হ্যালোজেন বা ফায়ার ফ্লেম রিটার্ডেন ব্যবহার করলাম। এভাবে আগুনের রিস্ক অনেকটা কমিয়ে নিয়ে আসা যায়।’

আগুন নেভাতে সবার আগে ছুটে যায় ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সদস্যরা। সংস্থার মহাপরিচালকের কাছে জানতে চাই? তাদের অভিজ্ঞতা আসলে কি?

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. সাজ্জাদ হোসাইন বলেন, ‘সময়ের সঙ্গে সঙ্গে আমাদের চাহিদা বেড়ে গেছে। আমরা বিভিন্ন ধরনের মডার্ন যেসব ইলেকট্রিক সরঞ্জামাদি সেগুলো ব্যবহার করছি। সেটার জন্য আমাদের অতিরিক্ত বিদ্যুৎ লাগছে। কিন্তু আমরা পুরোনো তারগুলো পরিবর্তন করিনি। সুতরাং একই তারের ওপর আপনি যখন অধিক লোড দেবেন, তখন তারের সঞ্চালন ক্ষমতা থাকে না, তখন সেটা গরম হয়ে যায় এবং সেখান থেকে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।’

যদিও দেশেই উৎপাদন হচ্ছে দীর্ঘসময় অগ্নিপ্রতিরোধক ক্যাবলসহ নানা কাঠামো। যা ব্যবহার করলে ঝুঁকি এড়ানো সম্ভব অনেকখানি।

পারটেক্সের ভাইস চেয়ারম্যান আজিজ আল কায়সার বলেন, ‘আমরা যখন ক্যাবল লিংক করি একটি বাসায় কিংবা একটি কমার্শিয়াল বিল্ডিংয়ে বা একটি ইন্ডাস্ট্রিতে যে আমরা কি কোয়ালিটির ক্যাবল ব্যবহার করছি। আমরা যখনই মনে করি, একটু কম দামে কেনা যায় কিনা। কিন্তু কম দামের কারণে যে এত বড় ক্ষতি হয়ে যাবে এটার কথা আমরা কখনো ভাবি না।’

তিনি জানান, এসব নির্মাণসামগ্রী সরকারি প্রকল্পে ব্যবহারের জন্য উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি খাতেও আগামীতে তা আরো বাড়বে বলে আশা তার।

পারটেক্সের ভাইস চেয়ারম্যান আরো বলেন, ‘বোর্টি ফায়ার রেজিস্ট্যান্ট ফায়ারিটারেন এবং ফায়ার প্রুভও আমরা করে থাকি।’

আপনার মন্তব্য দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন!
এখানে আপনার নাম লিখুন

- Advertisment -
  • সর্বশেষ
  • আলোচিত

সাম্প্রতিক মন্তব্য

স্বঘোষিত মহাপুরুষ on লকডাউন বাড়লো আরও একসপ্তাহ
জান্নাতুল ফেরদৌস on চিরবিদায় কিংবদন্তি কবরীর